সফল ব্যক্তিরা তাদের পণ্যের বিক্রি বৃদ্ধি করতে ইন্টারনেটে যে ১০টি কৌশল ব্যবহার করে !

ইন্টারনেটের ভার্চুয়াল দুনিয়াও আপনার জন্য হয়ে উঠতে পারে ব্যবসায়িক সফলতা লাভের সবচেয়ে বড় ক্ষেত্র যদি আপনি এর যথাযথ ব্যবহার করেন। লক্ষ্য করে দেখবেন ইন্টারনেটে এমন অনেক পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপন থাকে যা আপনার ব্যবসাকে অনেক দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি করবে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তাদের লক্ষ্য বা উদ্দেশ্য থাকে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আপনার পকেট পর্যন্ত পৌছানোর চেষ্টা মাত্র। সৌভাগ্য বশত ইন্টারনেটের এই ভার্চুয়াল দুনিয়াতেই এমন অনেক প্লাটফর্ম রয়েছে যার যথাযথ ব্যবহার করে আপনি আপনার ব্যবসাকে বাড়িয়ে নিতে পারেন বহুগুণে এবং কম খরচে, কিছু কিছু ক্ষেত্রেতো বিনামূল্যে। চলুন জেনে নিই ইন্টারনেটের সেই ১০ সহজ ব্যবহার যা আপনার পণ্য বা সেবার ক্রেতাকে আকৃষ্ট করবে আপনার প্রতি।

১. একটি ওয়েবসাইট তৈরী করুন:

আপনার হয়তোবা মনে হতেই পারে যে এটা আর এমন কি। কিন্তু একটু চিন্তা করে দেখুন। দেখবেন এটিই সবচেয়ে বৃহত এবং লাভজনক পদক্ষেপ যা আপনার ব্যবসাকে অনেক দুর পর্যন্ত নিয়ে যাবে। আপনার ব্যবসার পরিচিতি লাভ ও ক্রেতাদের আপনার প্রতি আকৃষ্ট করার জন্য একটি ওয়েবসাইট থাকা অনিবার্য। একটি ওয়েবসাইট বিহীন ব্যবসা যেন এক ঘরকুনো ব্যাঙের মতো। আর সবচেয়ে বড় ব্যাপারটি হলো একটি ভালো ডোমেইন এবং হোস্টিং সার্ভিস আজকের দিনে আপনি অনেক কম মূল্যে পেয়ে যাবেন যা আপনার ক্রেতা এবং আপনার মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করবে। তাই এখনই প্রথম পদক্ষেপটি নিয়ে নিন।

২. ইন্টারনেটে বিজ্ঞাপন দিন:

যে কোন ব্যবসায়ের প্রচার ও প্রসারের জন্য বিজ্ঞাপন অতীব জরুরি একটি উপাদান। বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট ভিত্তিক বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে আপনি পেতে পারেন এমন সব ক্রেতা যার কল্পনাও হয়তো আপনি করেন নি। এর জন্য ইন্টারনেচে অনেক ধরনের সার্ভিস ব্যবহার করা যেতে পারে। উদাহরণ স্বরুপ ক্রেগলিষ্ট। এর মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসায়িক পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপন নিয়মিত ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রকাশ করতে পারেন এবং আপনার লক্ষ্যকৃত ক্রেতারা সেই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনাকে খুঁজে নেবে। একজন ফটোগ্রাফারের জন্য তার সহযোগী যতটা লাভদায়ক ইন্টারনেট ভিত্তিক বিজ্ঞাপনও আপনার ব্যবসার জন্য ততটাই লাভজন প্রমানিত হবে। তাই এখনও না করে থাকলে দ্রুত দ্বিতীয় পদক্ষেপটি নিয়ে ফেলুন।

৩. এসইও (সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন) করুন:

বর্তমান সময়ে মানুষ ইন্টারনেটে যে কোন পণ্য বা সেবা ক্রয়ের জন্য প্রথমেই সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে সার্চ দেয়। আর বিনামূল্যে সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর পাওয়াটা আসলে লটারী জেতার থেকে কম কিছু নয়। তাই আপনি যদি সার্চ ইঞ্জিনের কাছে নিজের কি-ওয়ার্ড গুলোতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারেন। এটি আপনার দেবে এক বিশাল ক্রেতার জোয়ার যা হয়তো আপনার কল্পনার চেয়েও বহুগুনে বেশি। আর এই জোর্য়াই পরবর্তীতে আপনার ব্যবসার জন্য টাকায় পরিণত হবে। সার্চ ইঞ্জিন অপচিমাইজেশন যদি নিজের জানা নাও থাকে সেক্ষেত্রে আপনি খুব অল্প খরচেই অন্য অভিজ্ঞ কাউকে দিয়ে এটি করিয়ে নিতে পারবেন।

৪. আর্টিকেল রাইটিং:
একটি ভালো মানের আর্টিকেল আপনাকে এনে দিতে পারে এক বিশাল সংখ্যক ক্রেতা এছাড়াও এটি আপনার ওয়েব সাইটের মান উন্নয়নের যথেষ্ট সহায়ক ভূমিকা পালন করে। আর সবচেয়ে মজার কথা হলো এটির জন্য আপনাকে কোন টাকা খরচ করতে হবে না। আপনার পণ্য বা সেবার বিষয়ে বিশদ বিবরণ দিয়ে একটি আর্টিকেল লিখুন। আপনার ক্রেতারা সেটি পড়ে যদি তারা আপনার পণ্য বা সেবার যথাযথ মান বুঝতে পারে তাহলে তারা অবশ্যই সেটি ক্রয় করবে। আর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটি হলো একটি ভালো আর্টিকেল আপনাকে সার্চ ইঞ্জিনের কাছেও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ করে তুলবে।

৫. সোস্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করুন:
ইন্টারনেট ব্যবহার করেন অথচ সোস্যাল মিডিয়াতে নেই এমন ব্যক্তি অন্তত আজকের দিনে খুঁজে পাওয়া অনেক কঠিন একটি কাজ। আর এই বৃহত্তর কমিউনিটির কারণেই সোস্যাল মিডিয়া প্রোমোশন হয়ে উঠতে পারে আপনার ব্যবসায়িক প্রচারের সবচেয়ে বড় ক্ষেত্র। বর্তমান সময়ে আপনি এমন কোন সফল কোম্পানী খুঁজে পাবেন না যার একটি সোস্যাল পেজ নেই। যদি আপনি বিশ্বাস করেন যে আপনি যে ব্যবসা করছেন তা সবাই পছন্দ করবে তবে আপনার আজই একটি টুইটার প্রোফাইল এবং একটি ফেসবুক ফ্যানপেজের প্রয়োজন রয়েছে। এগুলি সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন করবে আপনার এবং আপনার ক্রেতাদের মধ্যে যা একটি ব্যবসার জন্য সবচেয়ে লাভজনক দিক। ফেসবুক ফ্যান পেজ বা টুইটার প্রোফাইলে আপনি আপনার ব্যবসা সম্পর্কে বা আপনার পণ্য বা সেবা সম্পর্কে ধারণা দিতে পারবেন। পাশাপাশি আপনার ক্রেতা এবং অন্যান্যরা আপনাকে তাদের চাহিদা ও গুরুত্বপূর্ন মতামত জানাবে যা আপনার ব্যবসাকে নিয়ে যাবে বহুদুর। আপনার টুইটার প্রেফাইল এবং ফেসবুক ফ্যানপেজ আছে তো? না থাকলে এখনই করে ফেলুন।

৬. ভিডিও শেয়ার করুন:
আপনি যে পণ্য বা সেবাই অফার করে থাকুন না কেন একজন ক্রেতা হিসেবে চিন্তা করে দেখুন আপনি কি শুধু মাত্র ছবি বা তথ্যের উপর ভিত্তি করেই একটি পণ্য বা সেবা গ্রহণ করবেন? হয়তো করবেন হয়তো বা না। কিন্তু এই হয়তো বা শব্দটি হ্যাঁ তে পরিবর্তিত হতে খুব বেশি সময় লাগবে না যদি আপনি আপনার পণ্য বা সেবার ভিডিও তৈরী করে সেটি অনলাই ভিডিও শেয়ারিং সাইটে শেয়ার করেন। আর এটি আপনি ইউটিউব বা ভিমিওর মাধ্যমে বিনামূল্যেই করতে পারেন। মনে রাখবেন একটি ভালো ভিডিও আপনার ক্রেতাকে নিশ্চিত করে যে সে যে পণ্য বা সেবা ক্রয় করতে চলেছে তার মান কেমন তাই দেরী না করে ভিডিও করা শুরু করে দিন।

৭. সাবক্রিপশনের ব্যবস্থা করুন:
ইন্টারনেট ভিত্তির ক্রেতাদের মধ্যে থেকে আপনি অনেক সময় একটি বড় অংশকে পেয়ে যাবেন যারা হয়তো আপনার আশে পাশেই রয়েছে। আপনি যদি তাদের জন্য এমন একটি সেবা দিতে পারেন যার মাধ্যমে তারা যেখানে আছে সেখান থেকেই খুব সহজেই আপনার পণ্য বা সেবা পেয়ে যাবে তবে এটি আপনার জনপ্রিয়তাকে বৃদ্ধি করবে শতগুনে। তাই অনলাইনে সাবক্রিপশনের মাধ্যমে ক্রেতাদের পছন্দের জিনিসটি তাদের কাছে পৌছে দিন। ব্যবসায়িক গতি বহুগুন বেড়ে যাবে।

এছাড়াও ইন্টারনেটে ফটো শেয়ারিং, পে পার ক্লিক এবং ইমেইল মার্কেটিংও আপনার ব্যবসায়ির প্রসারে সহযোগীতা করবে। আর আপনি যদি নতুন ব্যবসায়ি হয়ে থাকেন তাহলে আপনার নতুন ব্যবসার দ্রুত প্রসারের জন্য পড়ুন নতুন ব্যবসায়ে সফলতা লাভের ৫টি মূলমন্ত্র